গরুর মাংস ৫০০ টাকার কমে বিক্রি সম্ভব?

বাজারে গরুর মাংসের দাম বেশি হওয়ার বড় কারণ চাঁদাবাজি ও নানা হয়রানি বলে মনে করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক এ এইচ এম সফিকুজ্জামান। চাঁদাবাজি ও হয়রানি বন্ধ করলে বিক্রেতারা ৫০০ টাকার নিচে গরুর মাংস বিক্রি করতে পারবেন বলে মনে করেন তিনি।

সোমবার (১৮ মার্চ) রাজধানীর মিরপুরে উজ্জ্বল গোশত বিতান পরিদর্শনকালে তিনি এই কথা বলেন।

ভোক্তার ডিজি বলেন, চাঁদাবাজিসহ নানা হয়রানির বন্ধ হলে ৫০০ টাকার নিচে এক কেজি গরুর মাংস বিক্রি করা সম্ভব। তিনি বলেন, চামড়ার দাম যৌক্তিক মূল্যে বিক্রি এবং হাট থেকে গরু কিনে বাজারে আনা পর্যন্ত চাঁদাবাজি বন্ধ হলে, মাংসের দাম অনেক কমবে। এরই মধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলায় কম দামে মাংস বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছেন অনেকে। অতি মুনাফা না করে সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘবে দেশের অন্য ব্যবসায়ীরাও এমন উদ্যোগ নিতে পারেন।

সফিকুজ্জামান জানান, রোজায় কোনো ব্যবসায়ীর মাধ্যমে যেন ক্রেতারা প্রতারিত না হয়, সেজন্য সারাদেশে প্রতিদিন ৫০-এর বেশি টিম কাজ করছে। অভিযানের ফলে বাজারে শসা, লেবু ও বেগুনের দাম কমছে।

রাজধানীর আলোচিত ব্যবসায়ী খলিলের দেখানো পথে হেঁটে ৫৯৫ টাকায় গরুর মাংস বিক্রি করছেন মিরপুর ১১ নম্বরের উজ্জ্বল গোশত বিতানের উজ্জ্বল।

এ প্রসঙ্গে ব্যবসায়ী উজ্জ্বল বলেন, আমি গত চার মাস ধরে সাশ্রয়ী মূল্যে ভোক্তাদের কাছে গরুর মাংস বিক্রি করে আসছি। বছরের ১১ মাস ব্যবসা করি, রমজানের এক মাস ভোক্তাদের সেবায় সাশ্রয়ী মূল্যে গরুর মাংস বিক্রি করছি। আমি আমার সাধ্যমতো এ সাশ্রয়ী মূল্যে গরুর মাংস বিক্রির কার্যক্রম চালিয়ে যাব।

Check Also

রাজধানীর পল্লবীতে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা

রাজধানীর পল্লবীতে পাভেল (৩২) নামে এক যুবককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তিনি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *