পাকিস্তানে নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগে পিটিআইর বিক্ষোভ গ্রেফতার ৮০

চলতি বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে কারচুপির কারণে শনিবার পিটিআই নেতা কর্মীরা সারাদেশে বিক্ষোভ করে। এজন্য আবারো পুলিশের মুখোমুখি হতে হয়েছে তাদের।

পাঞ্জাবের পুলিশ লাহোর এবং অন্যান্য শহরে বেশ কয়েকজন কর্মী ও নেতাকে মারধর এবং গ্রেফতার করেছে বলে জানা গেছে। পিটিআই দাবি করেছে যে লাহোর থেকে প্রায় ৮০ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। খবর ডন।

শনিবার (৯ মার্চ) পাঞ্জাবের ৩৮টি শহরে বিক্ষোভ হয়েছে। লাহোর, জিপিও চক এবং লিবার্টি চকে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশ বাহিনীর সংঘর্ষ হয়।

জিপিও চকে জড়ো হওয়া পিটিআই নেতা-কর্মীরা স্লোগান দেয়, কিন্তু পুলিশ তাদের থামিয়ে দেয় এবং গ্রেফতার করে।

পিটিআই নেতা মিয়া শাহজাদ ফারুক এবং আফজাল আজিম পাহাতকেও গ্রেফতার করা হয়। তারা গত মাসে যথাক্রমে মরিয়ম নওয়াজ শরিফ এবং শেহবাজ শরিফের বিরুদ্ধে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

সাবেক সুপ্রিম কোর্ট বার সেক্রেটারি আফতাব বাজওয়া এবং দলের বেশ কয়েকজন কর্মীকে জিপিও চক, সেইসঙ্গে লাহোরের লিবার্টি রাউন্ডঅবাউট থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল।

বিক্ষোভকারীরা তাদের ন্যায্য ম্যান্ডেট ফিরে পেতে তাদের সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছিল এবং বলেছিল যে বর্তমান সরকার ভুয়া এফআইআর নথিভুক্ত করে তাদের চুপ কোতে পারবে

না।

তারা এটিও বলেন, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ করা তাদের অধিকার।

পিটিআই নেতা জুবায়ের খান নিয়াজি, ৯ মে থেকে আত্মগোপনে থাকলেও তিনি জিপিও চকে বিক্ষোভে হাজির হন।

লোকদের গাড়ি থেকে টেনে নিয়ে যাওয়া এবং তাদের গাড়িতে পিটিআইর পতাকা প্রদর্শনের জন্য গ্রেফতার করার ভিডিওগুলোও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ পেয়েছে।

পিটিআই পাঞ্জাবের সাধারণ সম্পাদক হাম্মাদ আজহার, তিনিও গত বছরের ৯ মে থেকে আত্মগোপনে ছিলেন। তিনি বলেন বিতর্কিত মুখ্যমন্ত্রী মরিয়ম নওয়াজ শরীফ শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে ফ্যাসিবাদ করেছেন।

সাবেক ফেডারেল মন্ত্রী আরো বলেন তার দল পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতারকৃত সবাইকে আইনি সহায়তা প্রদান করবে এবং ঘোষণা করেন যে পিটিআই পরের সপ্তাহে আরেকটি বিক্ষোভ করবে।

গুজরাটে, কুচেরি চকে বিক্ষোভ করার পর পুলিশ বেশ কয়েকজন পিটিআই কর্মীকে আটক করেছে।

Check Also

ইরানের হামলায় ইসরায়েলের পাশে থাকবে না যুক্তরাষ্ট্র: হোয়াইট হাউজ

যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকে বলেছে যে, তারা ইরানের বিরুদ্ধে কোনো প্রতিশোধমূলক হামলায় যোগ দেবে না। হোয়াইট হাউজের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *