বরিশাল টিবি হাসপাতালের রোগী ছুটিতে!(ভিডিওসহ)

বরিশাল টিবি হাসপাতালের রোগী ছুটিতে!।।স্টাফ রিপোর্টার ॥ ছুটিতে রোগী! হাসপাতাল শূন্য! দুইটি সিটে দুইজন রোগী! হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন রোগী আছে, তবে আপাতত ছুটিতে গেছেন রোগীরা। এমন অদ্ভত হাসপাতালের নাম বরিশাল বক্ষ্যব্যধী টিবি হাসপাতাল।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছেন, রোগীর সংখ্যা ৯ জন কিন্তু সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে ভিন্ন রূপ। দুইটি বেডে মাত্র দুইজন রোগী। যার মধ্য পুরুষ বেডে একজন, নারী বেডে একজন।

দুইজন রোগীর জন্য কি সরকার প্রতিবছর ব্যয় করছেন কোটি টাকা! এর আগে হাসপাতলটির বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম দুর্নীতির সংবাদ বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় সংবাদের শিরোনাম এসেছে। এরপরেও দুর্নীতিমুক্ত করা যায়নি হাসপাতালটি।

https://www.facebook.com/SomoyerBartaOfficial/videos/809610583407778

এবার আগাছা পরিস্কারের নামে সরকারী প্রায় কয়েক লাখ টাকার গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে ফের আলোচনা এসেছে হাসপাতালটি। কথায় আছে ‘সরকারী মাল দরিয়ামে ঢাল’।

হাসপাতালের এড়িয়াতে থাকা ছোট ছোট আগাচা পরিস্কারের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে বেশ কিছুদিন আগে। আগাচা পরিস্কারের কথা থাকলেও বড় বড় রেইনট্রি গাছসহ বেশ কিছু ফলজ গাছ কাটা হয়েছে। যার বাজার মূল্য প্রায় ৩ লাখ টাকা।

অনুমতি ছাড়া গাছ কাটার বিষয় স্থানীয়রা প্রতিবাদ জানালে কর্তৃপক্ষ চড়াও হয় তাদের ওপর। একপর্যায় পুলিশ এসে উত্তেজিত সাধারণ জনতাদের সরিয়ে দেন।

সংবাদ পেয়ে পুলিশ পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম.এ. মুকুল। মুকুল আরো জানান, টিবি হাসপাতালের এড়িয়াতে থাকা গাছ কাটা স্বাস্থ্য বিভাগের একান্ত ব্যক্তিগত বিষয়।

সে বিষয় স্বাস্থ্য বিভাগ দেখবেন। এদিকে গাছ কাটার সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে বেড়িয়ে আসে থলের বিড়াল। গতকাল সরজমিনে গেলে দেখা মেলে দুইজন রোগীর। যার মধ্যে একজন নারী অন্যজন পুরুষ।

প্রশ্ন উঠে দুইজন রোগীর জন্য ডাক্তার, নার্স, ক্লিনারসহ বেশ কিছু কর্মকর্তা-কর্মচার্রী নিয়োগ দেয়া হয়েছে। রোগীর পেছনে বছরে ব্যয় করা হচ্ছে প্রায় কোটি টাকার বেশী সরকারী অর্থ।

যা রাষ্ট্রের অর্থ অপচয় চাড়া আর কিছুই না। সাংবাদিকদের হেনেস্তকারী ও রোগি ছুটি আছেন এ বিষয় কোন মন্তব্য না করলেও স্থানীয় বাসীন্দাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বরিশাল সিভিল সার্জন ডা: মারিয়া হাসান।

ওই কর্মকর্তার পক্ষ নিয়ে সময়ের বার্তাকে জানান, গাছ কাটা নয়, বক্ষব্যাধী হাসপাতালের এড়িয়াতে আগাছা পরিস্কার করা হচ্ছে। তবে গাছ কাটার কোন অনুমতি দেওয়া হয়নি।

যদি গাছ কাটা হয়, তাহলে যথাযত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তদন্ত সাপেক্ষ্য যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বললেন, বরিশাল বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা: মো: হুমায়ুন শাহীন খান।

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন। এবং আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

Check Also

ফের বির্তকে জড়ালেন সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ

ফের বির্তকে জড়ালেন সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ

ফের বির্তকে জড়ালেন সিটি মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহ।। স্টাফ রিপোর্টার ॥ ফের বির্তকে জড়ালেন বরিশাল সিটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *