বরিশাল প্রকাশক ও সম্পাদক পরিষদের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

বরিশাল প্রকাশক ও সম্পাদক পরিষদের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

বরিশাল প্রকাশক ও সম্পাদক পরিষদের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত> বরিশাল অফিস॥ বরিশাল প্রকাশক ও সম্পাদক পরিষদের উদ্যেগে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরিষদের সভাপতি কাজী আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশালের জেলা প্রশাসক মোঃ জসীম উদ্দীন হায়দার, বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিষদের সাধারন সম্পাদক কাজী মিরাজ মাহমুদ।

হোটেল এরিনার সম্মেলন কক্ষে ২৭ এপ্রিল বুধবার এ ইফতার মাহফিলে অন্যান্যদের মধ্য বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা প্রবীন সাংবাদিক এস এম ইকবাল, উপদেষ্টা দৈনিক বিপ্লবী বাংলাদেশের সম্পাদক ও প্রকাশক নুরুল আলম ফরিদ, সহ-সভাপতি ও জাগো নারীর সম্পাদক গোপাল সরকার,

যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও সময়ের বার্তার সম্পাদক ও প্রকাশক এম লোকমান হোসাইন, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক বাংলার বনে পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মামুনুর রশীদ নোমানী, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড মাহিদ খান, ক্রীড়া সম্পাদক দক্ষিনের কাগজ পত্রিকার সম্পাদক এম সালাউদ্দিন প্রমুখ।

এছাড়া ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি বরিশালের আজকাল পত্রিকার সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, সহ সভাপতি দৈনিক কীর্তনখোলা পত্রিকার সম্পাদক সালেহ টিটু, সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান, সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, যুগ্ম-সম্পাদক ও দৈনিক দেশজনপদ পত্রিকার প্রকাশক-সম্পাদক মির্জা রিমন,

সাংগঠনিক সম্পাদক আজকের সুন্দরবন পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক মুজিব ফয়সাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আলোকিত বরিশাল পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক আলাল মিয়া, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক দখিনের প্রতিবেদন পত্রিকার প্রকাশক রাইসুল ইসলাম অভি, গন যোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক সংবাদ সকাল পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক কেএম শামছুদ্দোহা, সমাজসেবার প্রবেশন অফিসার সাজ্জাদ পারভেজ।

ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে জেলা প্রশাসক মোঃ জসীম উদ্দীন হায়দার,সৃজনশীল কাজ ও তৃনমূলের তথ্য পরিবেশনের জন্য সাংবাদিকদের ভূয়সী প্রশংসা করে জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দিন হায়দার।

এছাড়া তিনি বলেন, বরিশালে রেল লাইন স্থাপনের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। বরিশালবাসী আগামী দিনগুলোতে এর সুফল ভোগ করবে। পদ্মা সেতু চালু হলে বরিশাল হবে দক্ষিণাঞ্চলের অন্যতম উন্নত সমৃদ্ধ শহর।

তিনি বলেন, বরিশাল জেলার ১০ উপজেলায় প্রথম ধাপে এক হাজার ৯টি ঘর উপকারভোগী পরিবারের মধ্যে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর পরে আরও ৫৪৭টি ঘর দেয়া হয়েছে সম্প্রতি ৪৪৫টি ঘর উপহার হিসেবে হস্তান্তর করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার বলেন, জেলার সব উপকারভোগী পরিবার সদস্যদের আয়বর্ধক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আওতায় নেওয়া হবে।

যাতে তারা সমাজের মূল ধারায় সম্পৃক্ত হয়ে জীবনমান উন্নয়নে সক্ষম হন। ৩৩৩ নম্বরে কলের মাধ্যমে আমরা সহযোগীতা অব্যাহত রেখেছি। তিনি সাংবাদিকদের সহযোগীতা কামনা করে বলেন,আপনারা আমাদের সহযোগীতা করুন অসমাপ্ত কাজ বাস্তবায়নে সহায়ক হবে।

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন এবং আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

Check Also

ফিরে দেখা ২০২২

ফিরে দেখা ২০২২

ফিরে দেখা ২০২২।। স্টাফ রিপোর্টার॥ উত্থান-পতন পেরিয়ে অতীতের খাতায় চিরতরে জম‍া হবে ২০২২ সাল। নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *