বাকেরগঞ্জে সংখ্যালঘুকে উচ্ছেদ করে বহুতল ভবন!

বাকেরগঞ্জে সংখ্যালঘুকে উচ্ছেদ করে বহুতল ভবন!

বাকেরগঞ্জে সংখ্যালঘুকে উচ্ছেদ করে বহুতল ভবন! স্টাফ রিপোর্টার ॥ সংখ্যালঘু ব্যবসায়ীকে উচ্ছেদ করে সরকারী সম্পত্তি দখল ও বহুতল ভবন নির্মানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারী সকল নির্দেশ মেনে দীর্ঘদিন যাবত বাৎসরিক বন্দোবস্ত (লিজ) নিয়ে দোকান ঘর চালিয়ে আসছিল বাকেরগঞ্জের কালিগঞ্জ এর বাসিন্দা যশোদার সাহার পুত্র বিশ্বজিৎ সাহা।

এরই মধ্যে স্থানীয় প্রভাবশালী আকুল জোমাদ্দার ও আনোয়ার জোমাদ্দার, বিশ্বজিৎ সাহার দোকান ঘর ভেঙ্গে বহুতল ভবন নির্মান শুরু করেছেন। প্রভাবশালীদের ভয়ে বিশ্বজিৎ সাহা সব কিছুই মেনে নিচ্ছেন। কারণ ভবন নির্মানকারীরা হচ্ছেন স্থানীয় প্রভাবশালী, বিশ্বজিৎ সাহা হচ্ছেন সংখ্যালঘু।

বাকেরগঞ্জে সংখ্যালঘুকে উচ্ছেদ করে বহুতল ভবন!

তাই বাদ্ধ্য হয়েই সহ করতে হচ্ছে প্রভাবশালীদের সকল অপকর্ম। বাকেরগঞ্জ উপজেলার কালিগঞ্জ বাজারে ৫বছর পর আবারো সরকারি জমি দখল করে বহুতল ভবন নির্মান কাজ শুরু করেছেন ভুমি খেকো আনোয়ার ও আকুল জোমাদ্দার। সরকারি প্রায় ৩ শতাংশ জমিতে কাঠের দোকান ঘর তৈরি করে ব্যবসা করে আসছেন, বিশ্বজিৎ সাহা।

বছর কয়েক পূর্বে অর্দশ্য শক্তিরর ইশরায় কালিগঞ্জ এলাকার হাবিব জোমাদ্দারের  এর পুত্র আকুল জোমাদ্দার ও মোঃ আনোয়ার জোমাদ্দার বিশ্বজিৎ সাহাকে হঠিয়ে দখল করে নেন। যারা বাজার মূল্য প্রায় ৬০ লাখ টাকার বেশী। ২০১৮ সালের মাঝের দিকে ওই জমিতে বহুতল ভবন নির্মানের কাজ শুরু করেন আকুল ও আনোয়ার।

ওইসময়ে ‘সময়ের বার্তা পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করা হলে, স্থানীয় প্রশাসনের নির্দেশে ভবন নির্মানের কাজ বন্ধ করে দেন। গত ৫বছর পরে অদৃশ্য শক্তির ইশরায় ফের একই স্থানে ভবন নির্মানের কাজ শুরু করেছেন আকুল ও আনোয়ার জোমাদ্দার।

বাকেরগঞ্জ উপজেলাধীন রঙ্গশ্রী ইউনিয়ন সহকারি ভূমি কর্মকর্তা মোঃ গিয়াস উদ্দিন জানান, উপজেলা ভূমি সহকারী কমিশনার আবুজর মো: ইজাজুল হক এর নির্দেশে সরকারী জমির ওপর ভবন নির্মানকারীদের কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া  (আজ) সার্ভেয়ারকে সাথে নিয়ে সরজমিনে গিয়ে সরকারী সম্পত্তিতে শিমানা নিধার্রণ করা হবে। স্থানীয়রা জানায়, বাজারের সরকারের জমি দখল করে অর্থ ও ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে এবং ভূমি অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে আকুল জোমাদ্দার ও আনোয়ার জোমাদ্দার ভবন নির্মানের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। স

রকারি জমিতে দোকান ঘর পরিচালনার জন্য সরকারের কাছ থেকে বাৎসরিক বন্দোবস্ত (লিজ) নিয়ে দোকান ঘর চালিয়ে আসছিল এলাকার যশোদার সাহার পুত্র বিশ্বজিৎ সাহা। বিশ্বজিৎ সাহার দোকান ঘর ভেঙ্গে দিয়ে আনোয়ার জোমাদ্দার বহুতল ভবন নির্মান করতে গেলে বিশ্বজিৎ সাহা তাতে বাধা প্রদান করলে আনোয়ার জোমাদ্দার হুমকি দিয়ে বিশ্বজিৎ সাহার মুখ বন্দ করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠে।

ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সামনে প্রকাশ্যে সরকারি জমি দখল করে বেআইনভাবে বহুতল ভবন নির্মান কাজ দেখে এলাকার মানুষ হতম্ব। ভুমি খেকোদের ভয়ে বাজার কমিটিও নিরব ভূমিকা পালন করছেন। এবিষয় জানাতে ভবন নির্মানকারী আকুল জোমাদ্দারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি কোন সদত্তোর দিতে পারেননি।

উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আবুজর মো: ইজাজুল হক সময়ের বার্তাকে জানান, এবিষয় তিনি কাজ বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ প্রদান করেছেন, আগামীকাল (আজ) সার্ভেয়ারের মাধ্যমে সরকারী জমির পরিশিমা নির্ধারণ করা হবে। অবৈধভাবে যারা ভবন নির্মান করছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও নেয়া হবে। বলেন, বিষয়টি আগামীকাল বিস্তারিত জানবো এবং পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে এখানে ক্লিক করুন। এবং আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন ফেইজবুক পেইজে এখানে ক্লিক করে।

Check Also

কলাপাড়ায় প্রিমিয়ার ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন

কলাপাড়ায় প্রিমিয়ার ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন

কলাপাড়া প্রতিনিধি : পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় প্রিমিয়ার ব্যাংক স্থানান্তরিত শাখার উদ্বোধন করা হয়েছে। রবিবার বেলা সাড়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.