বিশ্বকাপে ব্যর্থতার তদন্তের প্রতিবেদন নিয়ে কী বললেন খালেদ মাহমুদ?

দলের টিম ডিরেক্টর হিসেবে খালেদ মাহমুদ সুজন গিয়েছিলেন ২০২৩ বিশ্বকাপে। প্রতিযোগিতা চলাকালীন টিম ম্যানেজমেন্টের ভাবনা, পরিকল্পনা নিয়ে কড়া সমালোচনা করেছিলেন বোর্ডের। কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেও তার সমালোচনা থেকে বাদ পড়েননি।

বিশ্বকাপ ব্যর্থতার কথা আর অজানা নয় কারোই। ৯ ম্যাচে মাত্র ২ জয় কেন সেই উত্তর খুঁজে বের করতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল। ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফ, সফর করা সকল স্টাফদের সঙ্গে কথা বলেছে তদন্ত অনুসদ্ধান্ত কমিটি। যার রিপোর্ট বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কাছে এরই মধ্যে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে সেই রিপোর্ট নিয়ে চলছে কঠোর গোপনীয়তা। রিপোর্টে কি আছে তা নিয়ে এখনও মুখ খোলেননি কেউ।

তদন্তের রিপোর্ট সামনে আসবে কিনা তাও জানানো হয়নি। তবে বিসিবির পরিচালক ও বিশ্বকাপ দলে টিম ডিরেক্টরের দায়িত্ব পালন করা খালেদ মাহমুদ তদন্তের রিপোর্ট প্রকাশ করার দাবি তুললেন। বুধবার গণমাধ্যমে খালেদ মাহমুদ বলেছেন, ‘তদন্ত প্রতিবেদন তো বিসিবি প্রকাশ করেনি। আমি জানি না, এটা প্রকাশ হবে কি হবে না। যারা তদন্ত করেছেন, তারা সেটি দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট স্যারকে। উনি যদি মনে করেন এটা বের করা দরকার, তখনই বোঝা যাবে কোনটা সত্য, কোনটা মিথ্যা। তবে আমার মনে হয়, প্রতিবেদনে এসেছে, সেটা প্রকাশ করা উচিত।’

কেন বিশ্বকাপ ব্যর্থতার তদন্ত প্রতিবেদন সবার সামনে আসা উচিত সেই কারণও ব্যাখ্যা করলেন খালেদ মাহমুদ, ‘প্রকাশ করলে ভালো। কারণ যদি আমাদের কোনো সমস্যা থাকে সেটা সমাধান হবে। আর বোর্ড যদি মনে করে, এটা প্রকাশ করব না, আমরাই সমাধান করব বোর্ড থেকে, সেটাও হতে পারে। এটা বিসিবির একটা ব্যাপার, প্রেসিডেন্ট স্যারের ব্যাপার।’

কিছুদিন আগে এক গণমাধ্যমে এসেছে তদন্তে রিপোর্টে বলা হয়েছে হাথুরুসিংহে তামিমকে নিতে চাননি বলে বিশ্বকাপ দল থেকে তাকে বাদ দেওয়া হয়েছে। তামিমকে নিয়ে বিশ্বকাপের আগে উটকো ঝামেলার কারণে দল বড় মঞ্চে দিয়ে ব্যর্থ হয়ে, এমন কথাও বলা হয়েছে। এসব নিয়ে খালেদ মাহমুদ বলেছেন, ‘কোথা থেকে খবরটা এসেছে জানি না। এমন কিছু (হাথুরুর কারণে তামিমের না থাকা) হলে বিসিবি নিশ্চয়ই দেখবে। তবে আমি মনে করি না, কারও কারণে ম্যাচ হেরে যায়।’

‘এটা দলীয় খেলা। এখানে একজনের কারণে কিছু হতে পারে আমি বিশ্বাস করি না। পরিকল্পনার সমস্যা থাকতে পারে। সেটা ভিন্ন ব্যাপার। তবে কোনো একজনের কারণে ম্যাচ জেতা বা হেরে যাওয়া… হ্যাঁ অনেকে একা ম্যাচ জেতায়। তবে খেলা তো মাঠে হয়। বাইরে থেকে আপনি কিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। আপনি চাইলেই ম্যাচ হারায় দিতে পারবেন না।’ – আরও যোগ করেন মাহমুদ।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের কাছে বিশ্বকাপ ব্যর্থতার তদন্তের প্রতিবেদন জমা দেয় কমিটি। গত বছরের ২৯ নভেম্বর তদন্ত কমিটি গঠন করে বিসিবি। যে কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন বিসিবির পরিচালক এনায়েত হোসেন সিরাজ। অনুসন্ধান কমিটিতে আরো ছিলেন বিসিবির দুই পরিচালক মাহবুবুল আনাম এবং আকরাম খান।

Check Also

প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিলো অস্ট্রেলিয়া!

তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া নারী ক্রিকেট দল। নিগার সুলতানার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *